চীনের সঙ্গে নিরাপত্তা নিয়ে চুক্তি হতে চলেছে আজ দিল্লির। এই চুক্তিতে বলা হয়েছে..

কাশ্মীরের মধ্যে বাণিজ্য করার রাস্তা তৈরি করে ফেলেছে বেজিং, এরই সঙ্গে ভারতের সঙ্গে নিরাপত্তা চুক্তি সই করতে চলেছে চীন।আজ অর্থাৎ 23 শে অক্টোবর 2018 তে দিল্লিতে প্রথম এই ধরনের কোন চুক্তি সই করতে চলেছে ভারত এবং চীন।
এই চুক্তিটি চীনের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা মন্ত্রী ঝাও কেঝি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এর মধ্যে হতে চলেছে। এই চুক্তির মাধ্যমে দুটি বিষয়কে দিল্লি থেকে অনাধিকার দেয়া হচ্ছে,

প্রথম বিষয়টি হল ,
জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহার কে রাষ্ট্রপুঞ্জে নিষিদ্ধ জঙ্গি তালিকার অন্তর্ভুক্ত করা, কিন্তু এটি এখনো হয়ে ওঠেনি।সাউথ ব্লক এ বিষয়ে কিছুটা আশাবাদী যে আজকের বৈঠকে এই বিষয়টা কিছুটা এগিয়ে নেওয়া যাবে।

দ্বিতীয় বিষয়টি হল,
চীনের কাছে কেন্দ্র দাবি করবে আলফার শীর্ষ নেতা পরেশ বরুয়াকে ফিরিয়ে আনতে চীনের হস্তক্ষেপের। ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রে খবর চীন এবং মায়ানমার সীমানায় আত্মগোপন করে রয়েছে পরেশ। এ বিষয়ে সমস্ত তথ্য বৈঠকে বেজিংয়ের হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে তবে বন্দি প্রত্যপর্ন সংক্রান্ত কোন চুক্তির কথা উঠে আসেনি।

রাষ্ট্র মন্ত্র সূত্রে 2015 সালে রাজনাথ সিং এর চীন সফরের সময় এই চুক্তি নিয়ে কথা হয়েছিল।তবে সেই সার্বিক চুক্তিতে রাজি ছিলনা বেজিং, বেইজিং এর মতে সার্বিক চুক্তির পরিবর্তে সেক্টর ধরে ধরে চুক্তি করা হোক। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং চীনের প্রেসিডেন্টের মধ্যে বৈঠকের পর একমত হয় দুই পক্ষ।

বিদেশ মন্ত্রকের বক্তব্য, ইসলামের ছায়া থেকে এবং ইসলামের সন্ত্রাসবাদ থেকে এখন আর মুক্ত নয় বেজিং। তাই ভারতের মতো দেশের সাথেজোট বদ্ধ হওয়ার একটি দায়িত্ব তাদের দিক থেকেও রয়েছে।

Related Post

Related Articles

Open

Close