মোদির মাস্টারস্টোকে পরাস্ত হলো চীন, ছিনিয়ে নিয়ে আসা হলো 300 মিলিয়ন ডলারের কন্ট্রাক্ট ভারতে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আরো একবার চীনের রাষ্ট্রপতি জিংপিং কে হারিয়ে দিলেন। এবার ভারত সরকার চীনকে শ্রীলংকার মাটিতে আছড়ে দিলেন। এর কিছু সপ্তাহ আগে নারেন্দ্র মদি মালদ্বীপের জিনপিংকে হারিয়েছিলেন। যেখানে সরাসরি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে চীন সমর্থিত প্রার্থী ও ভারত সমর্থিত প্রার্থী মধ্যে ছিল। সেখানে মালদ্বীপের নির্বাচনে চীনের অনেক কূটনীতির পরও ভারতের সমর্থিত প্রার্থীর এ জয় হয়েছিল কারণ মোদি আগে থেকেই মালদ্বীপের RAW নিযুক্ত করে বড় প্ল্যান করে রেখেছিলেন। আবার একবার মোদি সরকার আরও একটি বড় জয় নিয়ে এসেছে। এবার নরেন্দ্র মোদি চীন থেকে 300 মিলিয়ন ডলারের কন্টাক্ট ছিনিয়ে নিয়ে এলেন। আসলে চীন অনেকদিন ধরেই শ্রীলঙ্কাকে নিজের দলে করে রাখার প্রয়াস করছিল এর আসল উদ্দেশ্য ছিল ভারতকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলার।

আর তাজ্জবের ব্যাপার ছিল কংগ্রেস সরকার বারবার চিনের ফেলা জালে ফেসে যাচ্ছিল কিন্তু মোদি ক্ষমতায় আসার পর থেকে ভারতের কূটনীতিতে পরিবর্তন আসেছে। শ্রীলঙ্কায় জাফানায় LTTE এর সাথে সংঘর্ষের পরে সব কিছু ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল ‌ আর সেই জন্য শ্রীলঙ্কায় নতুন করে 40 হাজার বাড়ি তৈরি করার জন্য 300 মিলিয়ন ডলার টাকার কনটেক দেয়া হয়েছিল চীনকে। আপনাদের জানিয়ে রাখা ভালো যে জাফানা একটা হিন্দু বহু এলাকায় যেখানে 40,000 নতুন বাড়ি তৈরি করার জন্য 300 মিলিয়ন আমেরিকান ডলারে কন্টাক দেওয়া হয়েছিল চীনকে এরপর নরেন্দ্র মোদি ভারতে কূটনীতি শুরু করে দেন। মোদির মাস্টার প্ল্যান অনুযায়ী জাফনার স্থানীয় লোকেরা চীনের বিরোধিতা করতে শুরু করে দেয়। এই এলাকাটি প্রথম থেকে হিন্দু বহুল ছিল তাই শ্রীলঙ্কা কোন মতেই চায়নি যে আবার LTTE এর সংঘর্ষ শুরু হয়ে যাক সেখানে।

তাই শ্রীলঙ্কা চীনকে দেওয়া সেই কন্টাক পুনরায় ফিরিয়ে নেন। আর সেই শ্রীলংকার ফিরিয়ে নেয়া কন্টাক্ট দিয়ে দেওয়া হয় ভারত সরকারকে। এক কথায় বলা যেতে পারে যে পুরো কন্টাক্ট চীনের মুখ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে চলে আসেন মোদি সরকার। আর এটা শুধু 300 মিলিয়ন ডলার বিষয় না এটা একটি কূটনীতির জয় যার মাধ্যমে ভারত একটা বড় সাফল্য পেয়েছে ।যার ফলে পরবর্তীকালে কোনভাবেই চীন ভারতকে ঘিরে ফেলতে পারবে না এবং জাফনায় কাছে থাকা ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের উপর নজরদারি করতে পারবে।

Related Articles

Open

Close