সামনে এল 3 কোটি গ্রাহকের ফেসবুকে তথ্য চুরির ঘটনা। জানালেন ফেসবুক সংস্থা নিজে।

আমরা সকলে ফেসবুক ব্যবহার করি এবং ফেসবুকে নানা ব্যক্তিগত তথ্য আমরা শেয়ার করে থাকি।উড়ো খবর হিসেবে শুনলো আমরা সকলে মোটামুটি এ কথাটি শুনে থাকি যে ফেসবুকে তথ্যের ফাঁস হচ্ছে। কথাটি উড়ো কথা হলেও কথাটি সত্যি। ফেসবুকের প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট গায় রোজেন নিজে এ কথা স্বীকার করেন যে 2017 সালের জুলাই মাস থেকে 2018 সালের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ফেসবুক এর ফলে নানা সাইবার ক্রাইম ঘটেছে এবং হ্যাকাররা অনেক তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে ফেসবুক থেকে। প্রায় 3 কোটি মানুষের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে এর জন্য ব্যবহার করা হয়েছে 4 লক্ষ জনের বন্ধু তালিকার সাজেশন এবং ফ্রেন্ড লিস্ট।

প্রায় 1.50 কোটি মানুষের একাউন্ট থেকে তাদের নাম ইমেইল এড্রেস পাসওয়ার্ড এবং মোবাইল নাম্বারের সংক্রান্ত সমস্ত ডিটেলস হ্যাকার হাতিয়ে নিয়েছে। 1.14 লক্ষ্য মানুষের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে তাদের চাকরি সংক্রান্ত ডিটেলস, পার্সোনাল ডিশ ,চারিত্রিক ডিটেলস সমস্ত কিছু তথ্য সাইবার ক্রাইম এর জন্য হাতছাড়া হয়েছে এবং হাতিয়েছে হ্যাকাররা। আবার অনেক নামই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সহ ছোটখাটো পেজ হ্যাকারদের হাতে চলে গিয়েছে। এমনকি অনেক একাউন্টের সাথে বা অনেক পেজের সাথে লিংক করা ক্রেডিট কার্ড এবং সেই সংক্রান্ত সমস্ত ডিটেইলস হারিয়েছে অনেক মানুষ এবং এর ফলে ক্ষতি হয়েছে অনেক মানুষের ।এছাড়া ফেসবুকের নিজস্ব ডাটা বক্সে রাখা সমস্ত ক্রেডিট কার্ড ডিটেলস হয়েছে চুরি এক্ষেত্র ফেসবুকের উইক কোডিং এর জন্য খুব সহজেই হ্যাকাররা হাতিয়ে নিয়েছে। প্রায় এক লক্ষ মানুষের মত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারী থেকে লোপাট হল তাদের ক্রেডিট কার্ড সংক্রান্ত পুরো তথ্য এক হাতে যাইনি কারণ ফেসবুক থেকে সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে কখনোই পুরো ক্রেডিট কার্ড নাম্বার বা সমস্ত ডিটেইলস দেওয়া হয় না এমনকি একাউন্ট হোল্ডার কেউ শো করা হয় না।

এর সঙ্গে ফেসবুকে তরফ থেকে জানানো হয়েছে খুব তাড়াতাড়ি ফেসবুক ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার জন্য ব্যবস্থা নিচ্ছেন, আটকানোর জন্য বারবার পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করা বা আইডি লগ আউট করে লগইন করার কোন দরকার নেই ফেসবুক ইতিমধ্যে এ ব্যাপারে কাজ শুরু করে দিয়েছে।তার সঙ্গে আরও জানিয়েছে যে ফেসবুকে সাথে লিঙ্ক করা অন্যান্য কাউন্ট যেমন ইন্সটাগ্রাম বা কোন পেইজ বা কোনরকম ওয়েবসাইডে বা টাকা ইনকাম করার কোন সাইবার উপায় অর্থাৎ পয়সা কামানোর যেসব ওয়েবসাইটগুলি বর্তমান সেই অ্যাকাউন্ট গুলিতে লিঙ্ক করা থাকলে সেখানে এ হ্যাকারদের প্রভাব পড়বে না। এবং সেখান থেকে কিছু লোপাট হওয়ার সম্ভাবনা না হয় তবুও এর উপরে ফেসবুক তাদের এক্সপার্ট টিমের সাহায্যে রির্সাচ করছে এবং এ ব্যাপারে কনফার্ম করতে চাইছে যে এসব অ্যাকাউন্টগুলি যেন নিরাপদে থাকে।

Related Post

Related Articles

Open

Close